Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes
Home / অন্যান্য / অমর একুশে গ্রন্থমেলা ১৮তম দিন
ফাইল ছবি।

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ১৮তম দিন

আব্দুল করিম সরকার, পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি :

অমর একুশে গ্রন্থমেলার ১৮তম দিন। মেলায় নতুন বই এসেছে ১৩৯টি। বিকেল ৪:০০টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় কবি বেলাল চৌধুরী : শ্রদ্ধাঞ্জলি শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কবি পিয়াস মজিদ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কবি জাহিদুল হক, দিলারা হাফিজ এবং তারিক সুজাত। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কবি রবিউল হুসাইন।

প্রাবন্ধিক বলেন, বেলাল চৌধুরীর কবিতা অনুধাবন করতে হলে তাঁর নাক্ষত্রিক জীবনের পরিচয় লাভও জরুরি; যিনি অতি অল্প বয়সে প্রগতিশীল রাজনীতি ও সাহিত্যধারার সঙ্গে যুক্ত হয়ে ক্রমশ এক বিশাল শিল্পজগতের ক্ষুধা অনুভব করেছেন তাঁর অন্তর্গত সত্তায়। ফলে পঁচিশ বছর বয়সে কলকাতা গমন করে অতি সহজেই সেখানকার সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিবেশের অনিবার্য চরিত্র হয়ে ওঠেছেন।

কবিতাচর্চা, কৃত্তিবাস পত্রিকা সম্পাদনা এবং আরও নানাবিধ কিংবদন্তির জন্ম দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশে ফিরেও তিনি নিজ সত্তার বিচিত্রমাত্রিক প্রকাশ ঘটিয়েছেন। তাঁর কবিতায় আমরা খুঁজে পাই স্বগতোক্তির মধ্য দিয়ে সমকালীন সমাজের নিপুণ ময়নাতদন্ত।

কবিতাকে তাঁর আদিম ভৌতসত্তায় প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তিনি কাজ করে গেছেন নিরন্তর। এছাড়া তাঁর অসাধারণ গদ্যগুচ্ছ এবং অনুবাদকর্ম আমাদের সাহিত্যে এক স্বর্ণাভ সংযোজন হয়ে রয়েছে। আলোচকবৃন্দ বলেন, বেলাল চৌধুরী সামগ্রিকভাবে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের একজন অনন্যসাধারণ ব্যক্তিত্ব যিনি তাঁর কবিতা ও জীবনকে করে তুলেছেন অদ্বৈত।

তিনি বাংলা ভাষায় লাতিন আমেরিকার সাহিত্যের একজন পুরোধা অনুবাদক। সাংগঠনিক দক্ষতায় এবং উদারহৃদয় মানসে তিনি ঋদ্ধ করেছেন ঢাকা ও কলকাতার সাহিত্যভুবনকে। তাঁরা বলেন, বেলাল চৌধুরীর সাহিত্যকর্মের পূর্ণাঙ্গ পরিচয় পেতে হলে তাঁর রচনাবলি প্রকাশ অত্যন্ত জরুরি। সভাপতির বক্তব্যে রবিউল হুসাইন বলেন, বেলাল চৌধুরী একজন কিংবদন্তির নাম।

কবিতা, গদ্যচর্চা, সম্পাদনা, সাংগঠনিক দক্ষতা ইত্যাদির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের সাহিত্যসংস্কৃতিভুবনে তিনি পরিণত হয়েছেন একজন অনিবার্য নক্ষত্রে। তাঁর জীবনের মতোই বিচিত্র-বর্ণিল-ব্যতিক্রম তাঁর কবিতা ও সামগ্রিক শিল্পশস্য। অমর একুশে গ্রন্থমেলা উপলক্ষে বাংলা একাডেমি প্রতিবছর শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে।

এ বছর প্রথমবারের মতো ২০০৮ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত শিশু-কিশোরদের পুরস্কারপ্রাপ্ত ছবিগুলো নিয়ে বাংলা একাডেমির ড. মুহম্মদ এনামুল হক ভবনের দ্বিতীয় তলায় একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। বিকালে প্রদর্শনীটি উদ্বোধন করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। প্রদর্শনী চলবে ২৮শে ফেব্রুয়ারি ২০১৯ পর্যন্ত প্রতিদিন মেলা চলার সময়।

লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন প্রকাশিত গ্রন্থ বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন মুস্তাফিজ শফি, শোয়াইব জিবরান, মুহাম্মদ শামসুল হক, মলয় বালা। কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ করেন কবি দিলারা হাফিজ, রেজাউদ্দিন স্টালিন, ফরিদ আহমেদ দুলাল, রহিমা আখতার কল্পনা এবং মতিন রায়হান।

আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী ইকবাল খোরশেদ এবং সায়েরা হাবীব। পুথিপাঠ করেন জালাল খান ইউসুফী। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল সাইমন জাকারিয়ার পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘ভাবনগর ফাউন্ডেশন’ এর পরিবেশনা। এছাড়া সায়িক সিদ্দিকীর পরিচালনায় পরিবেশিত হয় পালাগান ‘নোলকজানের পালা’।

আগামীকাল ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/৭ ফাল্গুন ১৪২৫ বুধবার। মেলা চলবে বেলা ৩:০০টা থেকে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত। বিকেল ৪:০০টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের ছড়াসাহিত্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন সুজন বড়–য়া।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন আলম তালুকদার, আসলাম সানী, লুৎফর রহমান রিটন, আমীরুল ইসলাম এবং আনজীর লিটন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন অধ্যাপক সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ। সন্ধ্যায় রয়েছে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, কবিতা-আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লালমনিরহাটে প্রসুতির মৃত্যু তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন

তন্ময় আহমেদ নয়ন,লালমনিরহাটঃ  লালমনিরহাট  সদর হাসপাতালের গাইনী ও অবস ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রোজিনা বেগম ...