Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes
Home / অন্যান্য / স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা / খোসপাঁচড়া হলে করণীয় কী?
ছবি- প্রতীকী।

খোসপাঁচড়া হলে করণীয় কী?

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক:

গরমে অনেকের ত্বকেই খোসপাঁচড়া হতে দেখা যায়। এটি ছোঁয়াচে রোগ। এই রোগের চিকিৎসা অত্যন্ত জরুরি। না হলে রোগ জটিল হয়ে কিডনি আক্রান্ত হতে পারে।

কতগুলো উদ্ভেদ একসঙ্গে উৎপন্ন হলে চুলকানির জন্য ছিঁড়ে গিয়ে ক্ষত সৃষ্টি হয় এবং পরে মামড়ি পড়ে। Sarcoptes Scabies নামক পরজীব Parasite এ রোগের কারণ। এরা চামড়া দিয়ে ঢুকে, চামড়ার নিচে বাসা বাঁধে। এদেরকে চুলকানি পোকও বলা যায়। স্ত্রী পোকা চর্মের একদম উপরিভাগের মৃত কোষে গর্ত করে এবং এ গর্ত করা বাসায় Burrow অসংখ্য ডিম পাড়ে।

এভাবে এরা অসংখ্য Burrow সৃষ্টি করে ও ডিম ছড়াতে ছড়াতে এরা এক অঙ্গ থেকে অন্য অঙ্গে হানা দেয়। ২/৪ দিনের মধ্যেই ডিম ফুটে অসংখ্য বাচ্চা পোকাদের সৃষ্টি হয় এবং এক সঙ্গে সব জমা হয়ে চর্মের Hair follicles বা কেশগর্ভগুলোতে আশ্রয় নেয়। ফলে এসব স্থানে চুলকানি হয়। যখন এ পোকাগুলো গর্ত বা নালীর Burrow মধ্যে নড়াচড়া করে তখন চুলকানি সৃষ্টি হয়। অপরিষ্কার জামা-কাপড় ও বিছানা পত্র থেকে এ রোগ বেশি ছড়ায়।

যেহেতু রোগটি ছোঁয়াচে, সেহেতু খুব সহজেই পরিবারের অন্য সদস্যরা আক্রান্ত হতে পারে। তাই যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা করা দরকার।

খোসপাঁচড়া নিরাময়ে নির্দিষ্ট ওষুধ আছে, যা নির্দিষ্ট নিয়মে ব্যবহার করলে খোসপাঁচড়া সেরে যায়। ওষুধগুলো হচ্ছে ২৫ শতাংশ বেনজাইল বেনজয়েট, পারমিথ্রিন, টেটমোসল। ওষুধ ব্যবহারের পাশাপাশি কাপড়-চোপড় সিদ্ধ করে কাচতে হবে এবং বিছানো তোশক রোদে দিতে হবে।

আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গে পরিবারের অন্য সদস্য যারা একই বিছানা, তোয়ালে ও কাপড় চোপড় ব্যবহার করে, ঘনিষ্ঠ সাহচর্যে থাকে তাদের রোগের উপসর্গ থাকুক বা না থাকুক তাদের চিকিৎসা করতে হবে। তথ্যসূত্র: ইন্টারনেট।

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

যে ৫টি খাবার পেটের চর্বি কমাতে সাহায্য করে

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক: খাওয়ার দাওয়ার অনিয়ম, দীর্ঘ সময় বসে বসে কাজ করা, জাংক ফুড ...