Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes
Home / অন্যান্য / কৃষি / টমেটোর কেজি ৪ টাকা

টমেটোর কেজি ৪ টাকা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

বিভিন্ন জেলা থেকে টমেটো আসার কারণে বিপাকে পড়েছেন ঠাকুরগাঁওয়ের স্থানীয় টমেটো চাষিরা। প্রথমে ৪০ টাকা কেজি দরে বাজার শুরু হলেও বর্তমানে টমেটো প্রতি কেজি ৪ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

রোববার সকালে ঠাকুরগাঁওয়ের গবিন্দনগর কাঁচা বাজরের আড়ৎ এ দেখা গেছে ২৫ কেজি টমেটো ১শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরে জেলায় ২ হাজার হেক্টর জমিতে আগাম সবজির চাষ হয়েছিল। স্থানীয় বাজারের চাহিদা অনুযায়ী চাষিরা টমেটোর চাষ বেশি করেছেন।

অন্যদিকে দেশের অন্যান্য জেলা থেকে টমেটো ঠাকুরগাঁওয়ের বাজারে আসার কারণে দাম অনেক কমেছে বলে দাবি স্থানীয় চাষিদের। তবে পাইকারী বাজারে দাম কমলেও খুজরা বাজারে এখনও ১২-১৫ টাকা কেজি দরে টমেটো বিক্রি হচ্ছে।

সদর উপজেলার আখানগর এলাকার টমেটো চাষি আব্দুল হালিম বলেন, প্রতিবারের মতো এবারও ২ একর জমিতে আগাম টমেটোর চাষ করেছি। মোট খরচ হয়েছে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা। এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৫ হাজার টাকা বিক্রি করতে পেয়েছি। প্রথমে স্থানীয় বাজারে প্রতি কেজি টমেটো ৪০ টাকা বিক্রি করলেও এখন আড়তে ৪ টাকা দরে বিক্রি করতে হচ্ছে। শীতকালে আগাম টমেটো চাষে বেশি ঝুঁকি থাকলে অধিক লাভের আশায় চাষ করি।

তিনি জানান, গাছ থেকে পরিপক্ক কাঁচা টমেটো সংগ্রহ করার পর ২-১ দিন স্তুপ করে ঢেকে রাখতে হয়, না হলে ভাল রং আসে না। আর রং না আসলে বাজারে চাহিদা কম থাকে।

আব্দুল হালিম বলেন, বর্তমান বাজারে টমেটো বিক্রি করে অসল টাকা কোন মতে তুলতে পারলেও লাভবান হতে পারব না।

একই উপজেলার কচুবাড়ি মাটিগাড়া এলাকার মোখলেসুর রহমান বলেন, ১ একর জমিতে টমেটোর চাষ করেছি। প্রথমে ভাল দাম পেলেও এখন অনেক কম। বর্তমান বাজারে টমেটো বিক্রি করে চাষের খরচই তুলতে পারব না।

ঠাকুরগাঁও রোড বাজারে বাজার করার সময় মাসুদ রানা পলক নামে এক ক্রেতা বলেন, টমেটো কেনার সময় ২০ টাকা কেজি চাইছে। কিন্তু দামাদামি করে ১৫ টাকা দরে কিনেছি। পাইকারী বাজারে টমেটোর দাম এত কমেছে আমরা জানি না। সরকারি ভাবে বাজার মনিটরিং করা হলে ব্যবসায়ীরা আমাদের কাছে পণ্য চড়া দামে বিক্রি করতে পারতো না।

ঠাকুরগাঁও কাঁচা বাজারের আড়ৎদ্বার ফজলু বলেন, বাজারে যখন শুধুমাত্র ঠাকুরগাঁওয়ের টমেটো বিক্রি হতো তখন দাম ভাল ছিল। এখর রাজশাহী এলাকার টমেটো বাজারে আসার কারণে দাম কমে গেছে। টমেটো বেশি দিন রাখা যায় না। যদি সংরক্ষণের ব্যবস্থা থাকতো তাহলে স্থানীয় চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হতো না।

পাইকারী বাজারে দাম কমলেও খুজরা বাজারে না কমার বিষয়ে তিনি বলেন, ক্রেতারা বর্তমান বাজার না জানার কারণে খুচরা ব্যবসায়ীরা বেশি দাম নিতে পারেন। তবে ক্রেতারা যদি দাম করে বাজার করে তা হলে ভাল হবে।

ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আফতাব হোসেন বলেন, বাজারে প্রথমে টমেটোর দাম বেশি থাকলেও বর্তমানে অন্য জেলা থেকে টমোটো আসার কারণে পাইকারী বাজারে কিছুটা কমে গেছে। তাছাড়া টমেটো বাজারে একসঙ্গে আসার কারণে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। বাহিরের জেলার টমেটো আসা বন্ধ হলে দাম কিছু বাড়তে পারে।

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শীত উপেক্ষা করে নওগাঁয় কৃষকদের বোরো ধান রোপন

নওগাঁ প্রতিনিধি : উত্তরবঙ্গে চলমান মৃদ্যু শৈত প্রবাহ ও প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে নওগাঁয় বোরো ...