Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes
Home / অন্যান্য / কৃষি / টার্কি পালনে ভাগ্য বদল ভোলার মন্জুর রহমানের : দেখুন বিস্তারিত
Tarki-Palon-Munjur-Sabuzbd24

টার্কি পালনে ভাগ্য বদল ভোলার মন্জুর রহমানের : দেখুন বিস্তারিত

ভোলা প্রতিনিধি, আকিব:

সময়টা ছিল ২০১৫ সালের প্রথম দিক।পর পর ৪ ভাই বোনের বড় মন্জুর আলম।সংসারে আয় বলতে শুধু বাবার   উপর ই নির্ভর, সাথে চলত ৩ ভাই ও ১ বোনের পড়াশুনার খরচ। নিজে ৮ম শ্রেনীতেই পড়াশুনা ছেড়ে লেগে গেলেন অর্থ উপার্জনে।বাবার কাছে জমানো পুজি, আত্মীয়-স্বজন আর প্রতিবেশিদের কাছ থেকে ধার দেনা করে প্রায় ২লাখ টাকা নিয়ে ২০১৫ সালে শুরু করেন লেয়ার মুরগী পালন। অচেনা রোগবালাই আর অন-অভিজ্ঞ তর্তাবধানের খেসারত হিসাবে  গুনতে হলো লোকসানের ছাঁয়া।

Tarki-Palon-Vola-Sabuzbd24

মূলধন হারিয়ে নিঃস্ব মন্জুর কর্মের সন্ধানে চলে যান রংপুর জেলায়। কাজের ফাঁকে একসময় সাক্ষাৎ  হয় একজন সফল মহিলা টার্কি পালন উদ্যেক্তা ও ব্যাবসায়ীর সঙ্গে। তার কাছ থেকে স্বচ্ছ ধারনা নিয়ে মন্জুর শুরু করেন টার্কি পালন। প্রথমে ৫টি মুরগী দিয়ে শুরু করেন টার্কি পালন। আজ তার খামারে প্রায় ৩০০ টার্কি মোরগ মুরগী মিলে। ভোলার বোরহানউদ্দিন এর মোঃ মন্জুর আলম এর সাথে কথা হয় টার্কি পালন,রক্ষনাবেক্ষন এর বাজারজাতকরন  ও ব্যাবসায়িক মুনাফা নিয়ে। মন্জুর জানান তিনি প্রথমে ৫টি টার্কি পালন দিয়ে শুরু করলে ও আজ তার খামারে ৩০০ টি টার্কি এবং তার বাৎসরিক ব্যাবসায়িক মুনাফা দাড়ায় ২-৩ লাখ টাকা। কিভাবে জানতে চাইলে মন্জুর বলেন ১টি টার্কির ১দিনে বয়লার খাবার প্রয়োজন দিনে ২বারে ২৫০ গ্রাম ও শাক ১কেজি ৩বারে যার বাজার  ১২-২০ টাকা ১দিনে ১০০ মুরগীর স্যালাইন খরচ ১০০টাকা দৈনিক ১জন শ্রমিক খরচ বাবদ ৩৫০ টাকা।মুরগী ডিম পাড়া শুরু করে ৬ মাস বয়সে এবং ১বছর পর্যন্ত ডিম পাড়তে থাকে। গড়ে এরা বছরে ৮-১০ কেজি ওজন হয় যার বাজার মূল্য কেজি প্রতি ৫০০-১০০০ টাকা।জনাব মন্জুরের ভাষ্যমতে বছরে তার আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা নিট লাভ থাকে।।কোথায় বিক্রি করেন এর জবাবে জনাব মন্জুর বলেন একসময় টার্কি মুরগী কেউ ভালো করে চিনতো না এখন আমার খামার থেকে দূর দূরান্ত থেকে ভোলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে মানুষ আমার কাছ থেকে পালার জন্য বাচ্চা ও খাবার জন্য বড় মোড়গ, মুরগী কিনে নেয় তাছাড়া এর রোগ বালাই নেই বললে ই চলে।

Tarki-Palon-Vola2-Sabuzbd24

জিজেইউএস প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.খলিলুর রহমানের সাথে কথা বলে জানা যায় টার্কি পালনে ততোটা ঝুকি নেই কেননা এরা অনেক বড় ও রোগ প্রতিরোধি হয়, তাছাড়া এর বাজার দর ও অনেক ভালো। তরুণ শিক্ষিত যুবকদের টার্কি পালনে উৎসাহিত করে তিনি বলেন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে প্রশিক্ষন নিয়ে যে কেউ ই টার্কি পালন করতে পারে। তাছাড়া সরকার যুব উন্নয়নের প্রশিক্ষনের পর যুব ঋণ দিয়ে থাকে। বাচ্চা প্রতি দর জানতে চাইলে মন্জুর জানান ৭ দিনের বাচ্চা ৭০০,২০-২৫ দিনের ১০০০ আর ২ মাসের বাচ্চা বিক্রি হয় ২৫০০ টাকা দরে।তিনি আরও বলেন এখন আমার পরিবার অনেক ভালো চলছে,লেয়ার পালন করে যে টাকা লোকসান হয় তা পরিশোধ করলাম ছোট ৩ ভাইয়ের পড়াশুনার খরচ দিয়ে প্রতি বছর দুই থেকে আড়াই লাখ টাকা থাকে। যার মাধ্যমে আরও বড় আকারের ফার্ম করে টার্কি পালনের ভবিষৎ পরিকল্পনা করছেন জনাব মন্জুর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রংপুরে দেড় মাসে লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেক চাল সংগ্রহ

অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক: রংপুরের আট উপজেলা থেকে গেল এক মাস ১৩ দিনে ৮ হাজার ...