রবিবার , ডিসেম্বর 16 2018
হোম / খেলাধুলা / ফলোঅনে নেমেও বিপর্যয়ে ক্যারিবীয়রা

ফলোঅনে নেমেও বিপর্যয়ে ক্যারিবীয়রা

স্পোর্টস ডেস্ক:

মিরপুর টেস্টে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ গড়েছে রানের পাহাড়। স্বাগতিকদের গড়া বিশাল সংগ্রহের চাপটা যেন সামলাতেই পারল না সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টাইগারদের ৫০৮ রানের জবাবে ১১১ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনে পড়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৩৯৭ রানে পিছিয়ে ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেছে ক্যারিবীয়রা। তবে ফের বিপর্যয়ে তারা। দুই ওপেনারকে ছেঁটে ফেলেন সাকিব ও মিরাজ।

টাইগারদের হয়ে ক্যারিবিয়ান শিবিরে প্রথম আঘাত করেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। বার্থওয়েটকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে পাঠিয়ে দেন। আউট হবার আগে বার্থওয়েট ৬ রান করেন। সাকিবের পর মিরাজ পাওয়েলকে মুশফিকের হাতে ক্যাচ বানিয়ে প্যাভিলিয়নে পাঠালে সফরকারীদের দলীয় স্কোর দাঁড়ায় ২ উইকেটে ১৪ রান।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ২ উইকেটে ২৩ রান। হোপ ১১ ও অ্যাম্ব্রিস ৪ রানে ব্যাট করছেন।

৫ উইকেটে ৭৫ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। উইকেটে আশার প্রতীক হয়ে ছিলেন শিমরন হেটমায়ার। তিনি ছিলেন ৩২ রানে এবং শ্যান ডওরিচ ছিলেন ১৭ রানে অপরাজিত। তৃতীয় দিন ক্যারিবীয়দের প্রত্যাশা ছিল এই জুটি হয়তো কিছু একটা করে দেখাতে পারবে। তাদের সম্মানটাও হয়তো বাঁচাতে পারবে।

কিন্তু দিনের শুরুতে সাকিব আল হাসানকে হেটমায়ার ছক্কা মেরে শুরু করে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিলেও সেটা ছিল শুধুই অলীক কল্পনা। কারণ, এই জুটি মাত্র ১১ রান যোগ করার পরই মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণি ফাঁদে পড়ে যায়। মিরাজের হাতেই রিটার্ন ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন হেটমায়ার। ২৯ থেকে ৮৬, ৫২ রানের একটি দারুণ জুটি গড়েছিলেন হেটমায়ার আর ডওরিচ। অবশেষে সেটাও ভেঙে দিলেন মিরাজ। ৩৯ রান করে ফিরে যান হেটমায়ার।

এরপর মাঠে নামেন দেবেন্দ্র বিশু। কিন্তু তিনি টিকতে পারলেন কেবল ১০ বল। রান করলেন ১টি। অবশেষে মিরাজের বলেই সাদমান ইসলামের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান বিশু। ৮৮ রানে পড়লো ৭ম উইকেট। মাঠে নামলেন কেমার রোচ। তিনিও করলেন ১ রান। মিরাজের বলে উইকেটের পেছনে লিটনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনিও। ৬ উইকেট পেয়ে গেলেন মিরাজ। ৯২ রানে পড়লো ৮ম উইকেট।

পরের উইকেটটিও পান। ডাওরিচকে আউট করেন ৭ উইকেটের মালিক হন তিনি। শেষ উইকেটটি নেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তার বলে বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন শেরমন লুইস

ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় প্রথম ইনিংসে ১৫৪ ওভার ব্যাটিং করে ৫০৮ রানের পুঁজি দাঁড় করায় বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাই করেন ১৩৬ রান। ২৪২ বলের ইনিংসটিতে তিনি হাঁকান ১০টি বাউন্ডারি। ষষ্ঠ উইকেটে মাহমুদউল্লাহ আর সাকিবের ১১১ রানের বড় জুটিটিই মূলতঃ বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দিয়েছিল বাংলাদেশের। সাকিব সেঞ্চুরির আক্ষেপ নিয়েই সাজঘরে ফিরেছেন। ১৩৯ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৮০ রান করে কেমার রোচের শিকার হন টাইগার অধিনায়ক।

এরপর লিটন দাসকে নিয়ে ৯২ রানের আরেকটি জুটি মাহমুদউল্লাহর। লিটন হাফসেঞ্চুরি পূরণ করার পর অবশ্য বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ব্রেথওয়েটকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে ৫৪ রানে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসেন তিনি।

মেহেদী হাসান মিরাজ করেন ১৮ রান। নবম উইকেটে তাইজুল-মাহমুদউল্লাহর আবারও ৫৬ রানের জুটি। ২৬ রান করে তাইজুল ব্রেথওয়েটের শিকার হন। শেষ উইকেটে নাঈম হাসানকে নিয়ে ৩৬ রানের আরেকটি জুটিতে বাংলাদেশের সংগ্রহ পাঁচশ পার করে দেন মাহমুদউল্লাহ। নাঈম অপরাজিত ছিলেন ১২ রানে।

ক্যারিবীয়দের পক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন কেমার রোচ, দেবেন্দ্র বিশু, জোমেল ওয়ারিকেন আর ক্রেইগ ব্রেথওয়েট।

 

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

জনপ্রিয় পোষ্ট আপনার ভাল লাগতে পারে দেখুন “সবুজ বিডি ২৪“ এর সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

বর্ষসেরা হওয়ার সুযোগ তাইজুলের

স্পোর্টস ডেস্ক: টাইগার স্পিনার তাইজুলের ঘূর্ণি জাদুতে সফরকারী উইন্ডিজকে দুইদিন বাকি থাকতেই ৬৪ রানের হারিয়েছে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।