বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ১২:৪১ পূর্বাহ্ন

বীরগঞ্জে পাওনা ১৮ কোটি টাকার দাবিতে স্বপ্নতরীর প্রধান কার্যালয় ঘেরাও

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

বীরগঞ্জে গত ১৭ এপ্রিল পাওনা ১৮ কোটি টাকার দাবিতে স্বপ্নতরীর প্রধান কার্যালয় ঘেরাও ইউএনও’র হস্তক্ষেপে শান্ত হয়ে বাড়ী ফিরেছে পাওনাদারেরা।

স্বপ্নতরী এ্যার্গো সার্ভিসেস লিমিট্রেডের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মানিক চন্দ্র বর্ম্মন জানান, প্রদান কার্যালয়ের এজিএম মোঃ শরিফুল ইসলাম কোম্পানীর একটি প্রাইভেট কার ও নগদ ৪ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা নিয়ে অফিস থেকে পালিয়ে গিয়ে নীলফামারীতে নিজেই কোম্পানী খুলে বসেছে।

ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মানিক চন্দ্র বর্ম্মন টাকা নিয়ে ভারতে পালিয়ে গেছে এমান গুজব ছরিয়ে গ্রাহকদের মাঝে বিভ্রান্তী সৃষ্টি করে বিভিন্ন জেলার শতাধিক একযোগে গ্রাহককে টাকা আদায়ের জন্য বীরগঞ্জে প্রেরন করেছে।গ্রাহকেরা নিম্নে ১ লক্ষ উর্দ্ধে ১০ লক্ষ টাকা পাওনা আদায়ের জন্য ওই দিন বেলা ১০ টায় বীরগঞ্জ পৌরসভার স্লুইজগেট রোড প্রধান কার্যলয় ঘেরাও করে।

তাদের দাবি অধিক লাভের আশায় অথাৎ ৩ লক্ষ টাকা দিয়ে প্যাকেজ কিনে ৯০ দিনে ১ লক্ষ টাকা মুনাফার আশায় অনেকে জমি বন্ধক রেখে, ব্যাংকে ঋণ নিয়ে ও সঞ্চিত টাকা দিয়ে স্বপ্নতরীর প্যাকেজ কিনেছে। গ্রহকেরা তাদের দেয়া টাকা ফিওে পাবার জন্য চিৎকার শুরু করলে অফিসের একউটেন্ট, ক্যাসিয়ার সহ কর্মরত সকলে ভয়ে অফিস থেকে পালিয়ে যায়।

সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইয়ামিন হোসেন স্বপ্নতরীর কার্যালয়ে গিয়ে গ্রাহকদের অভিযোগ শুনেন এবং সমাধানের আশ্বাস দেন। তিনি ডিবিসি’র ক্যামেড়ার সামনে বিষটির সমাধান ও আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহনের মতামত ব্যাক্ত করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইয়ামিন হোসেন স্বপ্নতরী এ্যার্গো সার্ভিসেস লিমিট্রেডের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মানিক চন্দ্র বর্ম্মনের স্ত্রী মিনতী রানী রায় সহ প্রদত্ত টাকা আদান প্রদানের রেজিষ্টার ও দলিলপত্র সহ কর্মকর্তাদের ইউএনও অফিসে ডেকে নিয়ে যান এবং  সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত হিসাব-নিকাশ যাচাই করেন।

স্বপ্নতরী এ্যার্গো সার্ভিসেস লিমিট্রেডের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মানিক চন্দ্র বর্ম্মন আরো জানান, এজিএম মোঃ শরিফুল ইসলাম কোম্পানীর একটি প্রাইভেট কার ও নগদ ৪ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা চুরি করে পালিয়ে যাওয়ার কারনে সাময়িক সমস্যা হয়েছে। কিছুটা সময় দেওয়া হলে বিলম্ভে হলেও কিস্তিতে প্রত্যেকের পাওনা টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হবে এবং চুরির অভিযোগ এনে এজিএম মোঃ শরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের কওে আদালতের মাধ্যমে গ্রাহকের টাকা ফিরিয়ে আনা হবে।

উল্লেখ্য, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইয়ামিন হোসেন স্বপ্নতরীর কার্যালয় থেকে বেড়িয়ে যাওয়ার পর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মানিক চন্দ্র বর্ম্মনের আস্তাভাজন গ্রাহক এবং এজিএম শরিফুলের আস্তাভাজনদের মাঝে উত্তেজনা ও হাতাহাতি হয়।

 

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

সংবাদটি শেয়ার করুন:

© All rights reserved © 2018-2019  Sabuzbd24.Com
Design & Developed BY Sabuzbd24.Com