বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন

ভোলায় ৩টি আসনে এজেন্ট সংকটে বিএনপি

ভোলা প্রতিনিধি:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোলায় ৪টি আসনেই মধ্যে ভোলা-২,ভোলা-৩,ভোলা-৪ এই ৩টি আসনে এজেন্ট সংকটে পরেছেন বিএনপি’র প্রার্থীরা। বিশেষ করে নির্বাচনের শুরুতে থেকে শেষ পর্যন্ত দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত নেতারা নির্বাচনী মাঠে না থাকায় তাদের সমর্থকরা মাঠে নামেনি। এছাড়া ভয়ে হুমকি ধামকিতে অধিকাংশ তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা গণহারে দলত্যাগ করে আ’লীগে যোগদেয়ার কারণে ধানের শীষ মার্কার প্রার্থীদের এজেন্ট সংকটে পরতে হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভোলা-১ আসনে ছাড়া বাকী ৪টি আসনে বিএনপি’র মনোনয়ন পাওয়া প্রভাবশালী নেতারা দীর্ঘ দিন নির্বাচনী এলাকায় ভোটারদের কাছ থেকে ছিলেন বিচ্ছিন্ন। তফসিল ঘোষণার পর এ আসনগুলোতে বিএনপি’র এসব প্রার্থীরা আসলেও তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। যার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে ওই আসনগুলোতে হাজার হাজার নেতাকর্মীরা আ’লীগে যোগদান করার মধ্যদিয়ে। 

নেতাকর্মীরা দলের মনোনীত এসব প্রার্থীদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়া ও আ’লীগের হামলা,মামলার ভয়ে নির্বাচনের পুরোটা সময় নিজ বাড়িতে বসে কাটাতে হয়েছে। কোথাও একটি পোস্টার পর্যন্ত সাটাতে লোক পাননি তারা। যে কারণে ভোটেরদিন ভোট কেন্দ্রে প্রার্থীর পক্ষে এজেন্ট সংকটে পরতে হচ্ছে তাদের। 

তবে এসব আসনে বিএনপি’র প্রার্থীদের দাবি আ’লীগ প্রার্থীদের সমর্থকদের হামলা,মামলা ও পুলিশের গ্রেফতার আতঙ্কে নেতাকর্মীরা ভোট কেন্দ্রে এজেন্টের দায়িত্ব পালন করতে চাচ্ছেন না।

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আ’লীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, নির্বাচন চলাকালীন সময় বিচ্ছিন্ন বিক্ষিপ্ত ভাবে যেকয়টি হামলার ঘটনা ঘটেছে তা প্রত্যেকটি বিএনপি’র অভ্যন্তরীন দ্বন্দের কারণে হয়েছে। এখানে আ’লীগের নেতাকর্মীরা কোন হামলার ঘটনার সাথে জড়িত নেই। গ্রেফতারের বিষয়ে জেলা পুলিশের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা বলেন, পূর্বের মামলার পলাতক আসামিদের গ্রেফতার করা হয়েছে। কাউকে হয়রানীর উদ্দেশ্যে গ্রেফতার করা হয়নি।

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

সংবাদটি শেয়ার করুন:

© All rights reserved © 2018-2019  Sabuzbd24.Com
Design & Developed BY Sabuzbd24.Com