রবিবার , ডিসেম্বর 16 2018
হোম / অন্যান্য / কৃষি / মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় আখের বাম্পার ফলনেও কৃষকের দুঃচিন্তা

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় আখের বাম্পার ফলনেও কৃষকের দুঃচিন্তা

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি:

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার এবার আখের বাম্পার ফলন হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবার অধিক ফলন হলেও আখের সঠিক মূল্য নিয়ে চিন্তায় রয়েছে চাষিরা। বাজারে সঠিক মূল্য লাভের আশা তাদের। তবে সরকারিভাবে কোনো সহযোগিতা পেলে চাষিদের উপকার হবে এবং আখচাষে আগ্রহ বাড়বে এ উপজেলায় দাবি কৃষকদের।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়,সাটুরিয়া উপজেলার এবছর ৪০ হেক্টর জমিতে আখের চাষ করা হয়েছে।তবে উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে আখের ভালো ফলন হয়েছে।বিশেষ করে সদর ইউনিয়ন, ফুকুরহাটি, দড়গ্রাম ও দিঘুলিয়া ইউনিয়নে আখের বাম্পার ফলন হয়েছে।অনান্য ইউনিয়নেও ভালো হয়েছে।

চাষিরা জানায়, বাংলা বছরের কার্র্তিক মাসের শুরুতে জমিতে সারি বদ্ধভাবে আখের চারা রোপন করতে হয়। চারা ছোট থেকে প্রাপ্ত বয়স পর্যন্ত হওয়া পর্যন্ত। আখ ক্ষেতে ৩-৪ বার পানি দিয়ে মাটি ভেজাতে হয়। বেশ কয়েকবার জমিতে আগাছা পরিস্কার, রাসায়নিক সার, কীটনাশক ব্যবহার করতে হয়। এ সময় প্রচুর খরচ হওয়াতে দিনে দিনে আখ চাষ আগ্রহ কমে যাচ্ছে কৃষকদের।

চাষিরা জানান, বছর উপজেলায় বিভিন্ন জাতের বিশেষ করে বাটাম খাঘরী, গ্যান্ডারী, বৌম্বায়, মিস্ত্রি দানা, ধলী, পচাঁদান ও নিজকসহ বিভিন্ন জাতের আখের বাম্পার ফলন হয়েছে।

সাটুরিয়া ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামের আখ চাষী মো. চাঁন মিয়া জানান, এবছর তিনি ৯৫ শতাংশ জমিতে আখ চাষ করেছে। এতে প্রায় ২৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে এবং ভালো ফলনও হয়েছে। কিন্তু সরকারিভাবে কোনো সহযোগিতা না পাওয়ায় অর্থনৈতিকভাবে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাকে। যদি সরকারিভাবে সহযোগীতা পাওয়া যায়।তাহলে সামনে আরও বেশি করে আখ চাষ করতে পারবে।

ধূল্যা গ্রামের মো. আবুল হোসেন জানান, এবছর আখের বাম্পার ফলন হলেও পাইকার না আসায় চিন্তায় রয়েছে তিনি।সংসার চালাতে তাই বাজারে খুচরা অল্প মূল্যে বিক্রি করতে হচ্ছে। অপরদিকে সুদের টাকার জন্য সকাল বিকাল তাগাদা শুনতে হচ্ছে। জমিতে চারা রোপনের সময় দাদনে আনা সুদের টাকাও ফেরত দিতে পারছি না।

ফুকুরহাটি গ্রামের আব্দুর রহিম জানান, অর্থনৈতিক অভাবের কারণে আখ চাষের সময় ধারদেনা করে ৯০শতাংশ জমিতে বিভিন্ন জাতের আখ চাষ করেছেন তিনি। যদি সরকারিভাবে কম সুদে ব্যাংক ঋন পাওয়া যেত তাহলে ধার-দেনা করতে হত না। তাই সরকারের কাছে দাবি সরকার যেন এই ঋণের ব্যবস্থা করে দেয়। এতে কৃষকদের কৃষি কাজে আগ্রহ আরও বাড়বে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. এমদাদুল হক বলেন, সাটুরিয়া উপজেলায় এবছর প্রায় ৪০ হেক্ট্রর জমিতে আখ চাষ হয়েছে। অন্য বছরের তুলনায় এবছর আখের বাম্পার ফলন হয়েছে। বিশেষ করে সদর ইউনিয়ন, ফুকুরহাটি, দড়গ্রাম ও দিঘুলিয়া ইউনিয়নে আখের বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে ঠিকমত মূল্য পেলে চাষিরা বেশ লাভবান হবে।

 

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

জনপ্রিয় পোষ্ট আপনার ভাল লাগতে পারে দেখুন “সবুজ বিডি ২৪“ এর সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

ফুলবাড়ীতে গ্রীষ্মকালীন কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরন

দিনাজপুর,(ফুলবাড়ী) থেকে আফজাল হোসেনঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদে গ্রীষ্মকালীন মুগডাল চাষে কৃষকদের মাঝে বিনামূলে বীজও …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।