বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ০৯:৪২ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে টমেটো চাষ করে কৃষকদের বাম্পার ফলনের আশা

কৃষি  ডেস্ক :

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কৃষকেরা প্রতি বছরের ন্যায় এবারো মাচাতে টমেটো চাষ করে অনেক বেশি লাভবান হবেন বলে দেখচ্ছেন এখানকার কৃষকেরা। জমিতে চাষ করা টমেটোর চেয়ে মাচার গাছপাকা টমেটোতে’ই ভোক্তাদের আগ্রহ বেশি বলে জানিয়েছেন পাইকাররা।

তাই অর্থকরি ফসল হিসেবে পরিচিত শীতকালীন টমেটো উঠতে শুরু করেছে। জেলার বেশীরভাগ টমেটো এই উপজেলাতেই হয়ে থাকে। জানা যায়, বিজলি-১১ জাতের এই টমেটো আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন। ফলে সম্ভাবনা গড়ে উঠছে এর বিদেশি বাজারের। বাঁশের মাচায় সারি সারি টমেটোর গাছে থোকায় থোকায় কৃষকের স্বপ্নের টমেটো। জমি থেকে মাচার এ গাছ ৪ মাস বেশি ফল দেয়, আর আকারেও বড় হয় এর টমেটো। এ গাছে অল্প যতেœই ঝুড়ি ভরে ওঠে কৃষকের। বাঁশের মাচায় সারি সারি টমেটোর গাছ। আর এ গাছে থোকায় থোকায় কৃষকের স্বপ্নের টমেটো। জমি থেকে মাচার এ গাছ ৪ মাস বেশি ফল দেয়, আর আকারেও বড় হয় এর টমেটো।

জমির টমেটোর যখন শেষ সময় তখন এ বাগান থেকে প্রতি বিঘায় কৃষক টমেটো পায় ৮ থেকে ৯ মণ। এর ফলন আর মূল্যে আশাবাদী কৃষক। কৃষকেরা মাচাতে টমেটো চাষ করে অনেক বেশি লাভবান হচ্ছেন। পাইকাররা বলছে, জমিতে চাষ করা টমেটোর চেয়ে মাচার গাছপাকা টমেটোতেই ভোক্তাদের আগ্রহ বেশি। কৃষি কর্মকর্তাদের দাবি, এই টমেটো আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন হওয়ায়, সম্ভাবনা গড়ে উঠছে এর বিদেশি বাজারের। গত বছর খুচরা বাজারে রাসায়নিক স্প্রে করা টমেটোর দাম পায়নি পাইকাররাও।

তাই এবার ভালো দামের প্রত্যাশায় মাচার টমেটোতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন তারা।গোদাগাড়ী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ২ হাজার ৬৫০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। গত বছর গোদাগাড়িতে টমেটোর আবাদ হয়েছিল ২ হাজার ৬২০ হেক্টর জমিতে।এছাড়া রাজশাহী জেলার বিভিন্ন উপজেলায় এ পর্যন্ত ৩ হাজার ২১১ হেক্টর জমিতে টমেটোর আবাদ হয়েছে।

গতবার আবাদ হয়েছিল ৩ হাজার ২৭৮ হেক্টর। এখনো চাষিরা নতুন করে টমেটো চারা রোপন করছেন। তবে জেলার টমেটো খ্যাত বলে পরিচিত গোদাগাড়ি উপজেলার চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন মাঠে টমেটো উঠতে শুরু করেছে।

 

সব সময় আপডেট নিউজ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন- সবুজ বিডি ২৪

সংবাদটি শেয়ার করুন:

© All rights reserved © 2018-2019  Sabuzbd24.Com
Design & Developed BY Sabuzbd24.Com